1. admin@khoj24bd.com : admin :
  2. tishibly@gmail.com : gungun gungun : gungun gungun
  3. somankhan92@gmail.com : golam mohiuddin : golam mohiuddin
সরকারের ভেতরেই সিন্ডিকেট? - https://khoj24bd.com
শনিবার, ১৩ জুলাই ২০২৪, ০৬:৫৬ পূর্বাহ্ন
সর্বশেষ
লিবিয়া নিয়ে মুক্তিপণ আদায়কারী নুর মোহাম্মদ গ্রেফতার! জনমনে স্বস্তি পরিবেশবিদ মতিন সৈকত এগ্রিকালচারাল ইম্পর্ট্যান্ট পারসন এআইপি সন্মাননা পেলেন। এটি তার পঞ্চম রাষ্ট্রীয় স্বকৃীতি তজুমদ্দিনে জমি দখলে বাঁধা দেওয়ায় বিধবা নারীসহ ৪ জনকে পিটিয়ে আহত। হাসপাতালে ভর্তি।। দাউদকান্দিতে সুবিধাবঞ্চিত ও মেধাবী শিক্ষার্থীদের মাঝে শিক্ষা উপকরণ বিতরণ। দাউদকান্দিতে বৃদ্ধাকে হত্যা: ৩ ঘন্টার মধ্যে আসামীকে গ্রেপ্তার দাউদকান্দি পৌরসভার ৩৫ কোটি টাকার বাজেট ঘোষণা চান্দিনায় ডোবায় প্রাণ গেলো ইতালি প্রবাসী শিশুর উত্তরা প্রেসক্লাবের উন্নয়নের নামে আনা অনুদান সহ ছাদের রড চুরি! অভিযুক্ত চারজনের বিরুদ্ধে তুরাগ থানায় অভিযোগ দাউদকান্দির বরকোটা স্কুল এন্ড কলেজের এইচএসসি পরীক্ষার্থীদের বিদায় ও দোয়া বাংলাদেশ বিশ্বকাপে সেমি বা ফাইনালে খেলার মত করে টিম তৈরী করে নাই

সরকারের ভেতরেই সিন্ডিকেট?

  • Update Time : রবিবার, ৩ সেপ্টেম্বর, ২০২৩
  • ৪ Time View

নিত্যপণ্যের সিন্ডিকেট এখন সবার জানা৷ ভোজ্য তেল, চাল, পেঁয়াজ, ডিম, চাল, ব্রয়লার মুরগির পর সর্বশেষ হলো ডাব সিন্ডিকেট৷ আর ইলিশের এই ভরা মৌসুমেও মাছের উচ্চমূল্যের পেছনে আছে সিন্ডিকেট৷

ভোক্তা অধিদপ্তরের মহাপরিচালক এ এইচ এম সফিকুজ্জামান বলেন, ‘ডাবের অস্বাভাবিক দাম নিয়ে কাজ করতে গিয়ে আমরা বিস্মিত হই৷ কারণ, আমদানি পণ্য বা আরও কিছু পণ্যের নিয়ন্ত্রণ কিছু সংখ্যক প্রতিষ্ঠানের হাতে আছে৷ কিন্তু, ডাবের ব্যবসা তো করেন হাজার হাজার হাজার ব্যবসায়ী৷ এখানে কীভাবে সিন্ডিকেট সম্ভব! এখানে যেটা হয়েছে ব্যবসায়ীদের অসৎ মানসিকতা৷ ডেঙ্গুর অজুহাত তুলে তারা যে যার মতো ডাবের দাম বাড়িয়ে দিয়েছেন৷ ব্যবসায়ীদের মধ্যে এখন যে অসৎ মানসিকতা ঢুকে গেছে, সেটা নিয়ন্ত্রণ খুবই কঠিন৷ তারা সব সময় দাম বাড়ানোর অজুহাত খুঁজতে থাকেন৷’

‘এখন আমরা ইলিশ নিয়ে কাজ করছি৷ বোঝার চেষ্টা করছি, ভরা মৌসুমেও দাম কেন এত বেশি? আমরা তথ্য সংগ্রহ করছি৷ অভিযান চালানোর আগে আমরা তথ্য নিয়ে যাচাই করি৷ এখানেও একই পরিস্থিতি দেখতে পাচ্ছি’, যোগ করেন এ এইচ এম সফিকুজ্জামান৷

বিশ্লেষকরা বলেন, ‘বড় বড় সিন্ডিকেটের বিরুদ্ধে কোনো ব্যবস্থা না নেওয়ায় এই পরিস্থিতি সৃষ্টি হয়েছে৷ এখন যেকোনো পর্যায়ে সিন্ডিকেট হয়৷ সেটা স্থানীয়, আঞ্চলিক সবখানেই৷ এখানে ক্ষুদ্র আর বড় ব্যবসায়ী এখন আর বিষয় নয়৷ যে যেভাবে পারে সিন্ডিকেট করে দাম বাড়িয়ে ফেলে৷’

এ পর্যন্ত ভোজ্য তেল, পেঁয়াজ, চাল, ডিম, ব্রয়লার মুরগিসহ আরও কিছু পণ্যের শক্তিশালী সিন্ডিকেট চিহ্নিত হয়েছে৷ যেমন ভোজ্যতেলের বাজার নিয়ন্ত্রণ করে ছয়-সাতটি প্রতিষ্ঠান, চাল ২০টি প্রতিষ্ঠান, ব্রয়লার মুরগি-ডিম পাঁচ-ছয়টি প্রতিষ্ঠান৷ তাদের নোটিশ দেওয়া হয়েছে৷ তাদের বিরুদ্ধে ভোক্তা অধিদপ্তর এবং প্রতিযোগিতা কমিশন মামলাও করেছে৷ কিন্তু, কাজের কাজ কিছু হচ্ছে না৷

প্রধানমন্ত্রী এই সিন্ডিকেট নিয়ে উষ্মা প্রকাশ করেছেন, বাণিজ্যমন্ত্রী আসহায়ত্ব প্রকাশ করেছেন৷ আর শিল্প প্রতিমন্ত্রী কামাল আহমেদ মজুমদার বলেছেন, ‘অর্থনীতি ও বাজার দুই জায়গাতেই সিন্ডিকেট তৈরি হয়েছে৷ যার কারণে ক্ষুদ্র উদ্যোক্তারা ঝরে পড়ছেন এবং পণ্যের মূল্য বেড়ে বাজারে অস্থিরতা তৈরি হয়েছে৷’

কামাল আহমেদ মজুমদার আরও বলেন, ‘মন্ত্রীদের ভেতরেই সিন্ডিকেট আছে৷ শেয়ার কেলেঙ্কারিতে জড়িতরা মন্ত্রী৷’ এই কথা বলে অবশ্য কামাল আহমেদ মজুমদার অন্য মন্ত্রীদের তোপের মুখে পড়ে চুপ হয়ে গেছেন৷

ভোক্তা অধিদপ্তরের মহাপরিচালক বলেন, ‘ভোগ্যপণ্য ও কৃষিপণ্যে বড় বড় ব্যবসায়ী গ্রুপ ঢুকে বাজার তাদের নিয়ন্ত্রণে নিয়ে গেছে৷’

সিন্ডিকেট কারা?

সুশাসনের জন্য নাগরিকের (সুজন) হিসাব বলছে, বর্তমান সংসদ সদস্যদের মধ্যে ১৮২ জনই ব্যবসায়ী, যা ৬২ শতাংশ৷ আর এই ব্যবসায়ীদের আবার আওয়ামী লীগের মহাজোট থেকে নির্বাচিত হলেন ১৭৪ জন, যা ৬০ দশমিক ৪১ শতাংশ৷

কনজ্যুমারস অ্যাসেসিয়েশন অব বাংলাদেশের (ক্যাব) সহসভাপতি এস এম নাজের হোসেন বলেন, ‘বেশ কয়েকজন মন্ত্রীও আছেন যারা ব্যবসার সঙ্গে জড়িত৷ তাদের চালসহ ভোগ্যপণ্যের ব্যবসা আছে৷ আর ব্যবসায়ী এমপিতো অনেক৷ ফলে তারা সবাই মিলে নিজেদের অর্থাৎ ব্যবসায়ীদের স্বার্থই দেখে৷’

এস এম নাজের হোসেন বলেন, ‘এর বাইরে আরও যারা প্রভাবশালী ব্যবসায়ী আছেন, তারা ওই মন্ত্রী-এমপিদেরই আত্মীয়-স্বজন, বন্ধু-বান্ধব৷ তারা সরকার ও প্রশাসনে অনেক প্রভাবশালী। ফলে তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া যায় না৷ ব্যবস্থা নেওয়া হয় না৷ সরকারের মধ্যেই সিন্ডিকেট থাকলে, যা হয় তাই হচ্ছে৷’

একই কথা বলেন সুপ্রিম কোর্টের আইনজীবী অ্যাডভোকেট মনজিল মোরশেদ৷ তিনি বলেন, ‘এটা তো ব্যবসায়ীদের নিয়ন্ত্রিত সরকার৷ তাই, সিন্ডিকেটের বিরুদ্ধে টুকটাক কথা হলেও কোনো ব্যবস্থা নিতে দেখিনি৷ এই সরকার সিন্ডিকেটের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিতে পারবে বলেও মনে হয় না৷ কারণ, সরকারের মধ্যেই সিন্ডিকেট ঢুকে গেছে৷ সরকারে ব্যবসায়ীদের প্রভাব যতদিন থাকবে, ততদিন সিন্ডিকেটও থাকবে৷’

ভোক্তা অধিদপ্তরের মহাপরিচালক আরও বলেন, ‘সিন্ডিকেট আছে৷ তাদের আমরা চিহ্নিতও করেছি৷ সরকারের কাছে সে ব্যাপারে বিস্তারিত প্রতিবেদনও দিয়েছি৷ কিন্তু, আমরা ভোক্তা অধিকার আইনে সব বিষয়ে ব্যবস্থা নিতে পারি না৷ আমরা সাধারণত ভোক্তাদের অভিযোগের ভিত্তিতে ব্যবস্থা নিই৷ সিন্ডিকেট, মজুদতদারীর বিরুদ্ধে আইন আছে, বিশেষ ক্ষমতা আইন আছে৷ কর্তৃপক্ষ চাইলে ব্যবস্থা নিতে পারে৷ আমাদের রিপোর্টের ভিত্তিতে প্রতিযোগিতা কমিশন ৭৬টি মামলা করেছে৷ ডিমের ক্ষেত্রে আটটি প্রতিষ্ঠানের বিরুদ্ধে মামলা হয়েছে৷’

কেন আইন প্রয়োগ হয় না?

ভোক্তা অধিকার আইন ২০০৯ সালের৷ আর প্রতিযোগিতা কমিশন আইন ২০১২ সালের৷ ভোক্তা আইনে সর্বোচ্চ দুই বছরের কারাদণ্ড আর অনূর্ধ্ব দুই লাখ টাকা অর্থদণ্ড বা উভয় দণ্ড হতে পারে৷ আর প্রতিযোগিতা আইনে সর্বোচ্চ তিন বছর পর্যন্ত কারাদণ্ডের বিধান আছে৷ তবে, এই আইন সাধারণত খুচরা বিক্রেতাদের ক্ষেত্রেই প্রয়োগ করতে দেখা যায়৷ সিন্ডিকেট, মজুতদারদের বিরুদ্ধে নয়৷

আইনজীবী মনজিল মোরশেদ বলেন, ‘বঙ্গবন্ধু ১৯৭৪ সালে এসব মজুতদার, কালোবাজারি, সিন্ডিকেটবাজদের ধরতেই ওই আইন করেছিলেন৷ এই আইনে মৃত্যুদণ্ড ও যাবজ্জীবন কারাদণ্ডের বিধান আছে৷ কিন্তু, এই আইনটি প্রয়োগ করা হচ্ছে না বাজার সিন্ডিকেটকারীদের বিরুদ্ধে৷ মনে হয় যেন আইনটি আর নেই৷’

এই আইনজীবী আরও বলেন, ‘বিশেষ ক্ষমতা আইন প্রয়োগ করলে ওই ব্যবসায়ীদের কারাগারে যেতে হবে৷ সেটা হলে তো অনেকেই বিপদে পড়বেন৷ যারা ক্ষমতায় আছেন তাদের সঙ্গেই তো এই ব্যবসায়ীরা আছেন৷ তাদেরকে তো সবাই চেনেন৷ সরকার চেনে৷’

আর নাজের হোসেন বলেন, ‘আমরা ব্যবসায়ীদের বিরুদ্ধে কোনো কঠোর ব্যবস্থা নিতে দেখি না৷ এর কারণ হলো এই সরকার ব্যবসায়ী বান্ধব৷ তারা জনবান্ধব নয়৷’

ভোক্তা অধিদপ্তরের মহাপরিচালক বলেন, ‘আমাদের টার্গেট থাকে ভোগ্যপণ্যের সাপ্লাই চেইন যাতে বিঘ্নিত না হয়৷ তাই আমাদের আইনে যে ব্যবস্থা আছে, তা-ও অনেক সময় প্রয়োগ না করে আমরা ব্যবসায়ীদের মোটিভেটেড করার চেষ্টা করি৷’

Please Share This Post in Your Social Media

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

More News Of This Category
© All rights reserved © 2020 www.khoj24bd.com bangla News web portal.
Theme Customized By BreakingNews